জাপানে কানসাইয়ে বাংলাদেশীদের অমর একুশে উদযাপন

যথার্থ উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্যদিয়ে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি জাপানের ওসাকা শহরে কানসাইয়ে বসবাসরত বাংলাদেশীদের সংগঠন ‘কানসাই বাংলাদেশ সোসাইটি (কেবিএস)’ এর উদ্যোগে ‘অমর একুশে’ উদযাপিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির সভাপতি সৈয়দ জাহিদুর রায়হান।সাধারন সম্পাদক খন্দকার রুমীর শুভেচ্ছা বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। ড. মেহরুবা মোনার উপস্হাপনায় ও আর এ সরকার রবিনের সহযোগিতায় শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন পরবর্তী, প্রবাসী বাংলাদেশী ও জাপানীদের অংশগ্রহনের মাধ্যমে প্রতীকি শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।

অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন এম এ মান্নান, মাসুদ-উল হাসান, রবিউল আওয়াল ও ডা: মারুফ হক খান, এবং জাপানিজ ভাষায় ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস তুলে ধরেন জাকের মাহমুদ। ‌অনুষ্ঠানে মিস্ শিনু ইচিহারার নির্দেশনায় জাপানিদের কন্ঠে একুশের গান পরিবেশনা ছিল বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

অনুষ্ঠানে প্রবাসে বেড়ে উঠা শিশুদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন ছিল চোখে পরার মত। দেশ মাতৃকার ভালবাসা ও একুশের চেতনা শিশুদের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে একুশের গান, কবিতা, ছড়া পরিবেশন করানো হয়। একুশের চেতনা মূলক নাট্য পরিবেশন করে দিদার, সাইফুল, মামুন, তালিব, রিপন ও তাসনিফ। নৃত্য পরিবেশন করেন তাসনিম ইসরাত। এ ছাড়া ‘৫২ এর ভাষা আন্দোলনের উপর সাধারন জ্ঞান ভিত্তিক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে জাপানী অতিথিগণ বাংলা ভাষায় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি?’ এই বিখ্যাত উক্তির মাধ্যমে ভাষা শহীদদের স্বরন করেন। অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহোযোগিতায় ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম সহ অসীম কুমার সাহা, রাসেদুল ইসলাম ও শাওন। অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন হারুনুর রশিদ, রাসেল নিজাম, আরিফ, তাসবীর আহামেদ প্রমুখ।

About

Check Also

দেশে একদিনে মৃত্যু ৫৫, শনাক্ত ৩০২৭

দেশে চব্বিশ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে ১৩ হাজার ১৭৩টি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *