মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনী দিবসে ১১৪ জনকে হত্যা

মিয়ানমার জান্তা প্রশাসনের সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপনের মধ্যেই দেশজুড়ে গণতন্ত্রপন্থিদের বিক্ষোভে গুলি চালিয়ে শিশুসহ অন্তত ১১৪ জনকে হত্যা করা হয়েছে। স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাতে এ খবর জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

১ ফেব্রুয়ারির সেনাঅভ্যুত্থানের পর থেকে গণতন্ত্রপন্থিদের টানা বিক্ষোভে শনিবারই (২৭ মার্চ) সবচেয়ে বেশি প্রাণহানির খবর পাওয়া গেলো।

গণতন্ত্রপন্থিদের ওপর জান্তা বাহিনীর নির্বিচারে গুলি চালানোর প্রতিশোধ নিতে মিয়ানমারের আদিবাসীদের বিচ্ছিন্নতাবাদী সশস্ত্র গ্রুপগুলো ফুঁসে উঠছে। এরই মধ্যে, দ্য কারেন ন্যাশনাল ইউনিয়ন থাইল্যান্ড সীমান্তের কাছে একটি সেনাচৌকিতে হামলা চালিয়ে এক লেফটেন্যান্ট কর্নেলসহ ১০ সেনা সদস্যকে হত্যা করার দাবি করেছে। এর জবাবে কারেন বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা অঞ্চলের একটি গ্রামে বিমান হামলা চলেছে। হামলায় অন্তত দুই জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছে সামরিক বাহিনী।

এ ব্যাপারে অবশ্য মিয়ানমার সেনাবাহিনী মুখ খোলেনি। স্থানীয় এক সুশীল সমাজ গ্রুপের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স মৃত্যুর খবর জানিয়েছে।

শনিবার ইয়াঙ্গুন, মানডালাসহ বিভিন্ন শহরে গুলির হুমকি উপেক্ষা করে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী রাস্তায় নেমে আসার পর নিরাপত্তা বাহিনী তাদের ওপর চড়াও হয় বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

About S Chowdhury

Check Also

৩ বাহিনীর প্রধানের একযোগে পদত্যাগ ব্রাজিলে

প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারোর নেতৃত্ব নিয়ে তৈরি হওয়া সংকটের মধ্যে দেশটির সেনা, নৌ এবং বিমানবাহিনীর প্রধান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *